মেট্রোরেল সম্পর্কে ১০ টি বাক্য | মেট্রোরেল সম্পর্কে সাধারন জ্ঞান

মেট্রোরেল সম্পর্কে ১০ টি বাক্যঃ মেট্রো রেল বাংলাদেশের বর্তমান সরকারের দ্বিতীয় বৃহত্তম প্রকল্প। ঢাকা নগরবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন, নগরীর যানজট দিন দিন খারাপ হচ্ছে। ঢাকায় বসবাসকারী মানুষ যানবাহনে বসে অলসভাবে তাদের মূল্যবান সময় নষ্ট করছে। ট্র্যাফিক জ্যামের কারণেও বছরে বিপুল পরিমাণ অর্থের অপচয় হয়। অনেকেই সময়মতো কর্মস্থলে পৌঁছাতে পারেন না। তাই বলাই বাহুল্য যে মেট্রোরেল ঢাকা শহরের মানুষের কান্নার প্রয়োজনে পরিণত হয়েছে। আশা করা হচ্ছে যে ২০২১ সালের শেষের দিকে মেট্রো রেল আংশিকভাবে চালু হতে পারে। প্রাথমিকভাবে, আগারগাঁও থেকে উত্তরা পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার প্রসারিত করার পরিকল্পনা রয়েছে।

মেট্রোরেল সম্পর্কে ১০ টি বাক্য

মেট্রোরেল সম্পর্কে ১০ টি বাক্য  মেট্রোরেল সম্পর্কে সাধারন জ্ঞান
মেট্রোরেল সম্পর্কে ১০ টি বাক্য

সকল পিডিএফ বই ডাউনলড করুন

  • প্রকল্পের মোট দৈর্ঘ্য হবে ২০ কিলোমিটার এবং লাইনটি মতিঝিল পর্যন্ত যাবে।
  • আশা করা হচ্ছে যে মেট্রো রেল প্রতি ঘন্টা ৬০,০০০ যাত্রী বহন করবে।
  • শহরের ১৬ টি পয়েন্টে এর স্টেশন থাকবে। ফলে মানুষ সহজে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যেতে পারবে।
  • এতে সড়ক দুর্ঘটনার সংখ্যাও কমবে।
  • মানুষ তখন প্রাইভেট কারের উপর কম নির্ভর করবে বলে ট্রাফিক অবস্থার উন্নতি হবে।
  • মেট্রো রেলও ইকো-বান্ধব কারণ এটি বৈদ্যুতিক, তাই কোনও হর্নিং হবে না এবং রাস্তা-ভিত্তিক ট্রাফিক সিস্টেমের তুলনায় এটির জন্য কম শক্তি প্রয়োজন।
  • পুরো রুটটি ভ্রমণ করতে ৪০ মিনিটের বেশি সময় লাগবে না বলে আশা করা হচ্ছে।
  • তাই মানুষ সহজেই এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যেতে পারবে।
  • মেট্রো রেল আমাদের সামাজিক ও অর্থনৈতিক জীবনে অনেক ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে।
Mitu Khatun
Mitu Khatun

আমি মিতু। সবসময় লিখালিখি করতে ভালোবাসি। আর ভালোবাসি স্বাধীনভাবে বেচে থাকতে।

Articles: 211

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *